1. [email protected] : admin :
বৃহস্পতিবার, ২৫ জুলাই ২০২৪, ১২:৫১ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
ময়মনসিংহে বিভাগীয় বৃক্ষমেলা উদ্বোধন রোকন উদ্দিন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের নবগঠিত পরিচালনা কমিটির প্রথম সভা শিক্ষার্থীদের আদালতে যাওয়ার পরামর্শ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর ফুলবাড়ীয়ার আছিম আন্তঃ ফুটবল টুনামেন্ট ফাইনাল খেলা অনুষ্ঠিত স্ব-রাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সুরক্ষা বিভাগের সহযোগিতায় দুইজন কারাবন্দীর আইনি সহায়তায় ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে আসক’র উচ্চ পর্যায়ের প্রতিনিধি দল। ফুলবাড়িয়ায় উপ নির্বাচনে টিউবওয়েল প্রতিকে ভােট চাই, এডঃ মফিজ উদ্দিন মন্ডল টাকার ভারে হঠাৎ ভাব বেড়ে যায় দুই ভাইয়ের ফুলবাড়িয়ায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান জাতীয় গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্ট (অনুর্ধব-১৭-) ফাইনাল খেলা শেষ পরীক্ষার সময়, মেয়ের খাতা দেখতে গিয়ে ফাঁসলেন শিক্ষক বাবা ফুলবাড়িয়ায় বিনামূল্যে গাছের চারা বিতরণ

ওই ডাকছে টাঙ্গুয়ার হাওর, মারিয়া সুলতানা

  • প্রকাশের সময় : মঙ্গলবার, ৯ জুলাই, ২০২৪
  • ৩০ বার পঠিত

স্টাফ রিপোর্টার(ময়মনসিংহ): এই ভরা বর্ষায় রূপের সবটা মেলে ধরেছে টাঙ্গুয়ার হাওর। আকাশের মতো নীল, আয়নার মতো স্বচ্ছ  পানিতে টইটম্বুর এখন এই জলাভূমি। দূরে মেঘালয় পাহাড়, ঝরনা থেকে নেমে আসা পানি, অগণিত পাখির কলতান আর হিজল-করচ বনের অপরূপ সৌন্দর্যের দেখা মিলছে এই বর্ষা মৌসুমেই।

মেঘালয় পাহাড়ের পাদদেশে অবস্থিত সুনামগঞ্জের তাহিরপুর ও মধ্যনগর উপজেলার প্রায় ১০০ বর্গকিলোমিটার এলাকাজুড়ে বিস্তৃত বাংলাদেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম মিঠা পানির জলাভূমি ও দেশের দ্বিতীয় রামসার সাইটও।

টাঙ্গুয়ার হাওরের রূপের বিবরণ লিখে শেষ করার মতো নয়। বর্ষা ও শীতকালে দুই রকমের সৌন্দর্যে অপরূপ হয়ে ওঠে এই হাওর।

পর্যটকদের মতে, এই হাওর তার আসল সৌন্দর্যে সাজে বর্ষাকালে। এ সময়ে পানিতে থইথই করে চারদিক। চাইলে নৌকা থেকে নেমে লাইফ জ্যাকেট পরে সাবধানতার সঙ্গে ভেসে বেড়ানো যায় পানিতে, আর উপভোগ করা যায় আশপাশের সবুজের মহিমা। কিছু কিছু জায়গায় এই হাওরের পানি এতটাই স্বচ্ছ যে, নিচের জলজ উদ্ভিদ কিংবা মাছ দেখা যায় খালি চোখেই।

হাওরের সৌন্দর্য সম্পূর্ণভাবে উপভোগ করার জন্য ভ্রমণপিপাসুদের জন্য রয়েছে নানা সুবিধা।

সুনামগঞ্জ থেকে সরাসরি হাওরটিতে যাওয়ার ব্যবস্থা, প্রশস্ত নৌকায় থাকা এবং নৌকার মাঝেই স্বাস্থ্যসম্মত ও আধুনিক বাথরুমের ব্যবস্থা রয়েছে। হাওরটির অন্যতম আকর্ষণ হলো নৌকায় থাকা। বৃষ্টির সময়ে নৌকায় বসে চা খাওয়া, আড্ডা দেওয়া-এ যেন অন্য এক পৃথিবী।

এই হাওরকে বলা হয় দেশি মাছের আধার বা ‘মাদার ফিশারিজণ’ তাই প্রায় প্রতি বেলাতেই খাবারের মেনুতে থাকে নানা রকমের মাছের আয়োজন। আর যারা হাঁস ও দেশি মুরগির মাংস খেতে ভালোবাসেন, তাদের জন্য এ দুই ব্যবস্থাই থাকছে। নৌকার ছাদে বসে আশপাশের সৌন্দর্য পর্যবেক্ষণের সঙ্গে খাবারের আয়োজন, যা খাবারের স্বাদকে বাড়িয়ে দেয় বহুগুণ।

এক সময় মনে করা হতো এই হাওরে হয়তো শুধু বন্ধুবান্ধবের সঙ্গেই ঘুরতে যাওয়া সম্ভব। কিন্তু বর্তমানে থাকার জন্য আধুনিক ও আরামদায়ক নৌকা (হাউসবোট) প্রচলিত হওয়ায় এখন পরিবারের সদস্যদের সঙ্গেও অনায়াসে এই হাওর ঘুরে আসা সম্ভব। এ ছাড়া স্বল্প বাজেটে হাওর ভ্রমণের জন্য রয়েছে ছোট-বড় কাঠ ও স্টিলের নৌকা।

কেউ চাইলে পুরো একটি নৌকা ভাড়া করে নিতে পারবেন কিংবা অন্যদের সঙ্গে শেয়ার করেও ট্যুরে যেতে পারবেন। টাঙ্গুয়ার হাওরে ভ্রমণপিপাসুদের জন্য দুই শতাধিক আধুনিক ও আরামদায়ক হাউসবোট রয়েছে।

এর মধ্যে হাউসবোট মালিক সমিতিতে প্রায় একশটি রেজিষ্টার হাউসবোট রয়েছে। এ বছর আরও ৭০টির মতো হাউসবোট নতুন তৈরি করা হয়েছে।

যোগাযোগের উন্নয়নের পাশাপাশি পর্যটকদের জন্য মানসম্মত আবাসিক হোটেল ও স্বাস্থ্যসম্মত রেস্তোরাঁ গড়ে তুললে টাঙ্গুয়ার হাওর সহ তাহিরপুর উপজেলা হতে পারে দেশের অন্যতম সেরা পর্যটনকেন্দ্র।

তাহিরপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সালমা পারভিন বলেন, টাঙ্গুয়ার হাওরসহ তাহিরপুরে বিভিন্ন দর্শনীয় স্থানে আগত পর্যটকদের সুবিধার্থে উপজেলা প্রশাসন সব সময় কাজ করে যাচ্ছে। পর্যটকদের যাতে কোনো ধরনের হয়রানির শিকার না হতে হয়, সে দিকে আমরা সার্বক্ষণিক নজর রাখছি। এ ছাড়া টাঙ্গুয়ার হাওর রক্ষণাবেক্ষণ ও পর্যটকদের নিরাপত্তায় হাওরে আনসার সদস্যরাও রয়েছেন।

হাউসবোটে ভ্রমণ করতে চাইল সুনামগঞ্জ বা তাহিরপুর আসতে হবে। এরপর ভ্রমণের সব দায়িত্ব হাউসবোটের। হাউসবোট সুনামগঞ্জ শহরের সাহেব বাড়ি ঘাট থেকে ছাড়বে, নাকি তাহিরপুর থেকে ছাড়বে তা আগে থেকেই জেনে নিতে হবে। সুনামগঞ্জের ঘাট থেকে হাউস বোটে উঠলে টাঙ্গুয়া যেতে দুই ঘণ্টার বেশি জার্নি করতে হবে।

Facebook Comments Box
এই জাতীয় আরও খবর
© স্বত্ব সংরক্ষিত © ২০২৩ দৈনিক ফুলবাড়ীয়া সংবাদ
Theme Customized By Shakil IT Park
error: Content is protected !!